National Geographic Neanderthal No use of image is allowed without Photographer’s permission, prior to use, and subject to compensation. The licensing usage agreed upon with Joe McNally, or an authorized member of his staff, is the only usage granted. Photographer retains ownership and all copyrights in the work. This is not a work-for-hire. Photographer is in no way responsible for the implications, legal or otherwise, of any unlicensed usage of the artwork by the Agency, its Client, its Successors, Assignees or Transferees.

মানুষের জিনোমের ক্ষুদ্র একটি ফ্র্যাকশনই কেবল মানুষ

১.৫-৭ শতাংশ ডিএনএ যদি অনন্যভাবে মানুষের হয় তবে হিউম্যান জিনোমের অবশিষ্ট ৯৮.৫ শতাংশ ডিএনএ কী ডেনিসোভান বা নিয়ান্ডারথালের?

আপনি কী মানুষ? আপনার কত শতাংশ মানুষ? আপনি আপনাকে পরিপূর্ণ মানুষ মনে করেন? এ প্রশ্নগুলোর উত্তরে অনেকেই বলবেন আমি একজন সেপিয়েন্স, আমার বুদ্ধি আছে অথবা আমি একটি প্রাণি যে প্রাইমেট থেকে এসেছে কিন্তু আমার বুদ্ধিমত্তা আমাকে অন্য সব প্রাণি থেকে আলাদা মানুষে পরিণত করেছে, এর বাহিরে আমি আর কোনোকিছু জানিনা । তারা ভাববে মানুষেরও কী আবার পার্সেন্টিজ আছে? ব্লাইন্ডওয়াচমেকারের শিক্ষার্থীদের সাথে ব্যক্তিগত একটি আলোচনায় অধিকাংশ শিক্ষার্থীই প্রায় এ কথাগুলোই বলেছেন , শুধু একজন প্রশ্ন করেছিলেন , আমার এ প্রশ্নটি ফিলসফি থেকে করা না কি বায়োলজিক্যাল। মাঝেমাঝে আমাদের বড়রা আমাদের বলেন, মানুষের মতো মানুষ হও !  কিন্তু তারা প্রত্যেকে যে বিষয়টি এড়িয়ে যায় তা হলো আমরা পড়াশুনা করি, পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করি অথবা সেপিয়েন্স বা যাই হই , আমাদের ডিএনএ’র অত্যন্ত ক্ষুদ্র একটি ফ্র্যাকশনই কেবল অনন্য ভাবে মানুষ। (১)

woman in black tank top and black leggings doing yoga

 ১৬ই জুলাই সায়েন্স এডভ্যান্সে গবেষকরা জানান যে, সামগ্রিক হিউম্যান জেনেটিক ইনস্ট্রাকশন বইয়ের অথবা জিনোমের শুধুমাত্র ১.৫ থেকে ৭ শতাংশ ডিএনএ- ই কেবল ইউনিকলি মানুষের। প্রশ্ন হলো, ১.৫-৭ শতাংশ ডিএনএ যদি অনন্যভাবে মানুষের হয় তবে হিউম্যান জিনোমের অবশিষ্ট ৯৮.৫ শতাংশ ডিএনএ কী ডেনিসোভান অথবা নিয়ান্ডারথালের? তবে আমাদের জিনোমের বিশাল একটি অংশ কী অস্ট্রোলোপিথ, হোমো এরেক্টাস, হোমো ইরগেস্টার, ,হোমো হ্যাবিয়েলস, ড্রাগন ম্যান অথবা নাম না জানা অনাবিষ্কৃত আরো শত শত পূর্বসূরি ও নিকটতর পূর্বসূরিদের ধারণ করে? তার মানে আমরা যতই বুদ্ধিমান হই, আমরা যতই ভালো হই, আমরা যতই নিজের পায়ে নিজে দাঁড়াতে শিখি আমাদের পক্ষে ১.৫ শতাংশ থেকে আর বেশি পরিমাণ মানুষ হওয়া সম্ভব না, তাই নয় কী?

যাইহোক, আমার উদ্দেশ্য কিন্তু আপনাকে নিয়ান্ডারথাল অথবা লুঙ্গিম্যান প্রমাণ করা নয়! আমি শুধু বলতে চাইছি, আপনি যতটা অহংকারের সাথে নিজেকে মানুষ বলে থাকেন ততটা অহংকারের সাথে আপনার নিজেকে মানুষ বলা উচিত নয়, জেনেটিক্যালি আপনি ১.৫-৭ শতাংশ মানুষ আর আপনার জিনোমের প্রায় ৯৮.৫  শতাংশ অন্যান্য প্রাইমেট ও তাদের পূর্বসূরিদের সাথে সম্পর্কযুক্ত! আর এ জন্য এটা ভাবা একদম অবান্তর যে আপনি এলিয়েন, আপনি একা স্বর্গ থেকে পৃথিবীতে পতিত হয়েছেন! আপনার দেহের ৯৮.৫ শতাংশ ডিএনএ বলছে যে আপনি বিবর্তিত হয়েছেন, আপনার সাধারণ পূর্বসূরি রয়েছে আর অন্যান্য প্রাণির জিনোম যাদের সাথে আপনার ডিএনএর মিল আছে তারা আপনারই আত্মীয় যাদের থেকে আপনি মিলিয়ন মিলিয়ন বছর পূর্বে হয়তোবা বিচ্ছিন্ন হয়েছেন আর মিউটেশনের মাধ্যমে হয়তো অনন্যভাবে আপনি ১.৫ শতাংশ ডিএনএ প্রাপ্ত হয়েছেন যা আপনাকে নিয়ান্ডারথাল, অস্ট্রোলোপিথ, হোমো হ্যাবিলস অথবা শিম্পাঞ্জিতে পরিণত না করে বুদ্ধিমান মানুষে পরিণত করেছে, আর তাই আপনি বলছেন যে আমি মানুষ!

হিউম্যান জিনোমে অত্যন্ত বিক্ষিপ্ত কিছু ডিএনএ আছে যেগুলোর মধ্যে প্রবণতা আছে সে সকল জিন ধারণের যা ব্রেন ডেভেলাপমেন্টের সাথে জড়িত। আর এটা আমাদের ঈশারা দিচ্ছে যে মস্তিষ্কের বিবর্তনই মানুষকে মানুষ করেছে কিন্তু গবেষকরা এখনো পুরোপুরি জানেন না স্বতন্ত্রভাবে কোন কোন জিনগুলো মানুষকে মানুষ করে দিয়েছে যদিও HAR1 এবং FOXP2 আরো কিছু জিনকে ব্রেন ডেভেলাপমেন্টের জন্য দায়ী মনে করা হয় । ডেনিসোভান ও নিয়ান্ডারথালরাও কিন্তু প্রায় আমাদের মতোই ছিল। নিয়ান্ডারথালরা তো ঈশ্বর ও পরকালে বিশ্বাস করতো বলেও সম্ভাব্য রেকর্ড পাওয়া গেছে। জানুন- নিয়ান্ডারথালদের মধ্যেই কী এবস্ট্রাক্ট থট বিবর্তিত হয়েছিল?

কিন্তু এ ফলাফল দ্বারা প্রভাবিত হয়ে কী আগামীকাল থেকে আপনি আপনার বন্ধুকে, নিয়ান্ডারথাল ডাকবেন? না না! এ ভুল করা যাবে না! আফ্রিকার সাব সাহারার মানুষদের ০.০৯৬ থেকে ০.৪৬ শতাংশ ডিএনএ নিয়ান্ডারথালদের সাথে সেকচুয়াল ইন্টারকোর্সের ফলাফল! তাদের ভেতর ইনব্রিডিং হয়েছিলো বলে প্রমাণ পাওয়া গেছে! কিন্তু তাই বলে মাত্র ০.০৯৬ শতাংশ ডিএনএর জন্য আপনি তাকে নিয়ান্ডারথাল বলে ডাকবেন? কখনোই না, মাত্র ০.০৯৬ শতাংশ নিয়ান্ডারথালের ডিএনএ বহন করার কারণে আপনি তাকে কখনোই নিয়ান্ডারথাল ডাকতে পারেন না! বাইডেন যদি নির্বাচনে মাত্র ১.৫ শতাংশ ভোট প্রাপ্ত হতো তবে আমরা তাকে যৌক্তিকভাবেই প্রেসিডেন্ট বলতে পারতাম না! কিন্তু ভাগ্যের নির্মম পরিহাস এই যে আফ্রিকার সাহারার একজন মানুষের মাত্র ০. ০৯৬ শতাংশ ডিএনএ নিয়ান্ডারথালের হলেও,  যেহেতু তাদের জিনোমের ১০০ শতাংশ ডিএনএ নিয়ান্ডারথাল নয় আর তাই আমরা তাদের  নিয়ান্ডারথাল বলে ডাকতে প্রস্তুত না কিন্তু একই যুক্তিতে মাত্র ১.৫ শতাংশ হিউম্যান জিনোম ধারণ করে আমরা আমাদের হিউম্যান ডাকি যদিও তা ১০০ শতাংশ থেকে অনেক দূরে। গবেষকরা দেখেছেন, নন- আফ্রিকানদের ডিএনএ নিয়ান্ডারথাল থেকে আরো বেশি ডিএনএ পেয়েছে প্রায় ০.৭৩ শতাংশ থেকে ১.৩ শতাংশ এবং কিছু মানুষ তাদের ডিএনএর অত্যন্ত ক্ষুদ্র একটি ফ্র্যাকশন ডেনিসোভান থেকে পেয়েছে! (২)

 অতএব একজন মানুষকে মানুষ ডাকা ঠিক কতটা যৌক্তিক? একটি পরমাণুর ভেতর ইলেক্ট্রন, প্রোটন ও নিউট্রন থাকা সত্ত্বেও তাকে পরমাণু ডাকা ঠিক যতটা যৌক্তিক, একজন মানুষের জিনোমে নিয়ান্ডারথাল, ডেনিসোভান অথবা তাদের মধ্যবর্তী আরো অজস্র মিক্সচার ডিএনএ থাকার পরও তাদেরকে মানুষ ডাকা ততটাই যৌক্তিক কিন্তু আমরা পরমাণুকে যেমন মৌলিক কোনো পার্টিকেল মনে করিনা ঠিক তেমনি মানুষও পরমাণুর মত অখন্ড বা মৌলিক কিছু না, মানুষের মাঝে মৌলিকত্ব মাত্র ১.৫-৭%! আর এ জন্য যখন গর্বের সাথে  নিজেকে মানুষ বলেন তখন আর একবার চিন্তা করুন।

নতুন একটি কম্পিউটেশনাল পদ্ধতির মাধ্যমে, ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়া, সান্তা ক্রুজের বিজ্ঞানীরা ২৭৯ জন ব্যক্তির জিনোমে ডিএনএর প্রতিটি স্পোট পরীক্ষা করেন। প্রতিটি স্পোটের মাধ্যমে গবেষকরা নির্ধারণ করার চেষ্টা করেন যে উক্ত ডিএনএ ডেনিসোভান থেকে এসেছে  না কি নিয়ান্ডারথাল থেকে অথবা না মানুষের অনেক দূরবর্তী কোনো পূর্বসূরি থেকে যারা বহু পূর্বেই বিলুপ্ত হয়ে গেছে। ইউনিভার্সিটি অব ওয়াশিংটনের পপুলেশন জেনেটিসিস্ট কেলি হ্যারিস বলেন, যদিও প্রতিটি ব্যক্তি প্রায় এক শতাংশ নিয়ান্ডারথাল ডিএনএ বহন করে কিন্তু তাদের নিয়ান্ডারথাল ডিএনএ বিটগুলো একইসাথে অবস্থান করেনা। আর তাই যদি আপনি নিয়ান্ডারথাল ডিএনএ  বহন করে এমন যে কারো এলাকাগুলো যোগ করেন তবে এটি খুব শীঘ্রই সম্পূর্ণ জিনোমকে কাভার করবে।

এ ক্ষেত্রে ৫০ শতাংশ কালেক্টিভ জিনোম এমন কিছু এলাকা বহন করছে যেখানে এক বা একাধিক ব্যক্তি ডেনিসোভান ও নিয়ান্ডারথালদের ডিএনএ উত্তরাধিকার সূত্রে পেয়েছে। জিনোমের বাকি অধিকাংশই মানুষের সাম্প্রতিক পূর্বপুরুষ ও অতিসাম্প্রতিক আত্মীদের অতিবাহিত করেছে। অন্যান্য প্রাচীন পূর্বসূরিদের ডিএনএ বাদ দেয়ার পর গবেষকরা এবার সেই এলাকার দিকে তাকালেন যেখানে প্রতিটি মানুষের সুনির্দিষ্ট ডিএনএর সমন্বয় আছে যা অন্য কোনো প্রজাতির মধ্যে নেই। আর তারা এভাবে আবিষ্কার করেন যে মানুষের জিনোমে অনন্যভাবে শুধুমাত্র ১.৫ থেকে ৭ শতাংশ ডিএনএ আছে। (৩)

ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়া সান ফ্রান্সিসকোর কম্পিউটেশনাল বায়োলজিস্ট নাথার শেফার বলেন এ গবেষণা শুধুমাত্র এটা দেখেছে যে ইনব্রিডিং মানব ডিএনএ তে ঠিক কতটা প্রভাব বিস্তার করতে পেরেছে কিন্তু গবেষণা এটা নিশ্চিত করেছে যে মানুষ শুধু নিয়ান্ডারথাল এবং ডেনিসোভানের সাথেই আন্তঃপ্রজনন করেনি, তারা ইনব্রিডিং করেছিল আরো নাম না জানা অন্য কোনো হোমিনিডের সাথে।(৪) আমরা জানিনা যে মানব সভ্যতা যে নাম না জানা অন্যান্য হোমিনিড গ্রুপের সাথে সেক্স করেছিল তাদের মধ্যে “Dragon Man” অথবা “Nesher Ramla Homo” অন্তর্ভূক্ত ছিলো কি না যারা নিয়ান্ডারথালদের চেয়েও মানুষের নিকটবর্তী আত্মীয় বলে সাম্প্রতিক গবেষণায় জানা গেছে। (৫)   

শেফার ও তার সহকর্মীরা আবিষ্কার করেন , মানুষ নিজেদের সাথে ছাড়াও অন্যান্য হোমোনিড গ্রুপের সাথে অজস্রবার মিক্সিং ও মিঙ্গলিং হয়েছে। যে সমন্বয়টি মানব ডিএনএ কে স্বতন্ত্র করে তুলেছিলো সেটি ঘটেছিল আনুমানিক ৬০০, ০০০ বছর থেকে ২০০,০০০ বছরের মধ্যে। প্রায় ৬০০,০০০ বছর আগে মানুষ ও নিয়ান্ডারথাল তাদের নিজস্ব শাখা গড়ে তোলে। মানব ডিএনএর এ আনুমানিক হিসেবে সে সকল প্লেস গণনায় নেয়া হয়নি যেখানে মানুষ ডুপ্লিকেশনের মাধ্যমে ডিএনএ অর্জন করেছে অথবা একে হারিয়েছে। আর এ ধরণের এক্সট্রা ডিএনএই সম্ভবত মানুষের মধ্যে নতুন বৈশিষ্ট্যের জন্ম দেয় যা মস্তিষ্কের বিবর্তনের সাথেও জড়িত।

প্রাচীন ডিএনএ ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র খণ্ডে বিভক্ত হয়েছে এবং গবেষকরা বিলুপ্ত হোমিনিড থেকে জিনোমের অংশগুলো একত্রিত করেছেন। খন্ডিত জিনোমগুলোই এর বড় অংশ কোথায় হারিয়ে গেছে অথবা অর্জিত হয়েছে সে ব্যাপারটি বোঝার ক্ষেত্রে জটিলতা সৃষ্টি করে। আর এ জন্য গবেষকরা ডিএনএর অত্যন্ত ক্ষুদ্র সমন্বয় নিয়ে কাজ করেন যা এক বা একাধিক ডিএনএ বেসের সাথে জড়িত ___ মলিকিউলের তথ্যবহনকারী অংশ। আর এ থেকে জানা যায় নিয়ান্ডারথাল এবং সেপিয়েন্স তাদের ভিন্ন ভিন্ন বিবর্তনীয় পথ গ্রহণ করেছে অতি-সাম্প্রতিক। আর এটা বিস্ময়ের ব্যাপার নয় যে মাত্র ৭ শতাংশ বা তার কম পরিমাণ জিনোমের ভেতরই মানুষ বিবর্তিত হয়েছে অনন্যভাবে। আর তাই এটা বলা যেতেই পারে মানুষ হলো তার জিনোমের ভেতর অবস্থিত ৭% ডিএনএ মাত্র!

মজার ব্যাপার হলো,  যে ৭ শতাংশ ডিএনএ কে আমরা ইউনিক মনে করছি তাও হয়তো আসলে ইউনিক নয়। গবেষকরা নিয়ান্ডারথাল, ডেনিসোভান ও অন্যান্য বিলুপ্ত প্রাণীর জিনোমের পাঠোদ্ধার করে ক্রমাগত বুঝতে শুরু করেছেন যে, অবশিষ্ট ৭ শতাংশের মধ্যেও হয়তো অনেক বিলুপ্ত পূর্বসূরীর জিন আছে। এখন প্রশ্ন হলো, যদি এই ৭ শতাংশ ডিএনএও ইউনিকলি মানুষের না হয়ে থাকে তবে মানুষ বলতে আমাদের আসলে কী বোঝা উচিত? কী হওয়া উচিত মানুষের ডেফিনেশন? আমরা কী তবে আসলেই এলিয়েন?

তথ্যসুত্রঃ 

  1. Only a tiny fraction of our DNA is uniquely human
  2. What does it mean to have Neanderthal or Denisovan DNA?
  3. Genes That Make Us Human | Science | AAAS
  4. Multiple lines of mysterious ancient humans interbred with us, National Geographic
  5. Scientists hail stunning ‘Dragon Man’ discovery – BBC News
hsbd bg