এভারেস্ট থেকে বেরিয়ে আসে লাশ!

এভারেস্ট থেকে বেরিয়ে আসে লাশ!

বিবিসির রিপোর্ট অনুসারে, এভারেস্টের গলিত হিমবাহ থেকে বেরিয়ে আসে মৃত মানুষের লাশ। এভারেস্ট পর্বতের চূড়ায় ভ্রমণ বিশ্বের অন্যতম ভয়ানক একটি কাজ কারণ এ যাত্রা বিশ্বাসঘাতক, বিপুল প্রতিবন্ধকতায় পরিপূর্ণ। এখানে আছে পতনশীল বরফ, বিচ্ছিন্ন ভূখণ্ড, বিকট তাপমাত্রা এবং অবিশ্বাস্য উচ্চতা যা আপনার উচ্চতাজনিত অসুস্থ্যতাও ( Altitude Sickness) তৈরি করতে পারে। প্রায় ৫০০০ মানুষ সফলতার সাথে এভারেস্টে আরোহন করলেও ২০১৯ সালের গার্ডিয়ানের সূত্রমতে, ৩০০ জন পর্বাতারোহী পথিমধ্যেই মৃত্যুবরণ করেছেন। এ সকল মৃত শরীরের কিছু কিছু বরফের অভ্যন্তরে চাপা পড়ে যায় এবং বহু বছর ধরে লুকিয়ে থাকে। কিন্তু জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে মৃতদেহের চারপাশের বরফ গলতে শুরু করায় অজস্র অঙ্গ ও শরীর আকস্মিক বেরিয়ে আসে । ২০১৮ সালে গবেষকরা দেখেছিলেন, এভারেস্টের গড় উষ্ণতা বৃদ্ধি পাচ্ছে এবং ২০১৪ সালের গবেষণা দেখায় যে, পর্বতের জলাশয়গুলো ক্রমাগত প্রসারিত হচ্ছে। তবে শুধু হিমবাহ গলে যাওয়াই নয় এ দেহগুলো প্রকাশিত হতে নেতৃত্ব দিয়েছিল নেপালের খুম্বু হিমবাহের সঞ্চালনও।

May be an image of nature, sky and mountain
জলাশয়ের সম্প্রসারণ

২০১৫ সালে ওয়াশিংটন পোস্ট রিপোর্ট করেছে, খুম্বু আইসফল হিমালয়ের সবচেয়ে বিপজ্জনক জায়গা, আর অনেক মৃত দেহ এখানেই পাওয়া যাচ্ছে। তারা বলেন, সেখানে, বরফের ব্লকগুলো অপ্রত্যাশিতভাবে ভেঙে যেতে পারে এবং কয়েক ফুট নিচে পিছলে যেতে পারে। ১৬ জন পর্বাতারোহী একবার পতনশীল বরফের নিচে পড়ে মারা যায় বলে জানা যায়।

নেপাল মাউন্টেইনারিং এসোসিয়েশনের প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট আং শেরিং শেরপা বলেন, বৈশ্বিক উষ্ণতা বৃদ্ধির কারণে বরফের শীট ও হিমবাহ দ্রুত গলে যাচ্ছে এবং এতে করে এত বছর ধরে দাপনে থাকা লাশগুলো বেরিয়ে আসছে। তিনি আরও বলেন, সাম্প্রতিক বছরগুলোতে যে সব ডেড বডি পাওয়া গেছে সেগুলো আমরা সরিয়ে এনেছি কিন্তু প্রাচীন শরীরগুলো যেগুলো বরফের তলায় ছিলো সেগুলো উন্মোচিত হচ্ছে।

May be an image of 8 people, helicopter and outdoors

বিবিসি বলেন, এভারেস্টের একদম চূড়ায় কিছু ডেডবডি ল্যান্ডমার্ক হিসেবে কাজ করছে। পর্বতের চূড়ার পাশে এমন একটি ল্যান্ডমার্কের নাম “Green boots”। আরোহনকারীদের এই সবুজ বুট সে সকল মৃতদের রেফারেন্স দেয় যারা ঝুলে থাকা পাথরের নিচে পড়ে মারা গেছে। কিছু কিছু ক্লাইম্বিং অফিসার বলছেন যে পরে মৃত দেহটি সরানো হয়েছিল কিন্তু নেপাল টুরিজম অফিসিয়াল বলেন, তাদের কাছে এ ব্যাপারে কোনো ইনফরমেশন নেই। আসলে হায়ার ক্যাম্প থেকে মৃতদেহ পুনরুদ্ধার ও সরানো অনেক বেশি ব্যায়বহুল। বিশেষজ্ঞরা বলেন, মৃতদেহ নামাতে $৪০,০০০ থেকে $৮০, ০০০ খরচ হয়ে যেতে পারে। More Article: প্লাস্টিক ইটিং ব্যাক্টেরিয়ার বিবর্তন

তথ্যসূত্রঃ


1. Mount Everest: Melting glaciers expose dead bodies (https://www.bbc.com/news/science-environment-47638436)
1. Mount Everest: melting glaciers exposing bodies of climbers, The Guardian (https://www.theguardian.com/…/mount-everest-melting…)
1. Melting Glaciers on Mount Everest Reveal Dead Bodies – Insider (https://www.insider.com/melting-glaciers-unveil-dead…)

hsbd bg