মূলপাতা বিজ্ঞাননিউরোসায়েন্স আমরা কী ভবিষ্যতকে স্মরণ করি?

আমরা কী ভবিষ্যতকে স্মরণ করি?

লিখেছেন অ্যান্ড্রোস লিহন
156 বার পঠিত হয়েছে

আমরা কী ভবিষ্যতকে স্মরণ করি?

𝐓𝐡𝐞 𝐒𝐞𝐜𝐫𝐞𝐭 𝐨𝐟 𝐭𝐡𝐞 𝐌𝐢𝐧𝐝.

ᵖᵃʳᵗ4

শুধু আমাদের মস্তিষ্কের একটি সেন্সের মেমরি এনকোড করতে গেলেই ব্যাপক জটিলতা তৈরি হয়।প্রশ্ন হলো এভোলিউশন কিভাবে মানুষের ব্রেনকে পোগ্রাম করেছে যার জন্যে সে বিপুল পরিমাণ তথ্যকে দীর্ঘস্থায়ী মেমরিতে সংরক্ষণ করতে পারে? আমরা জানি যে, জেনেটিক্যাল প্রবণতাই প্রাণীদের আচার আচরণকে নিয়ন্ত্রণ করে ।প্রাণীদের মস্তিষ্কে দীর্ঘকালীন কোনো স্মৃতি নেই।তাদের স্মৃতির স্থায়িত্ব কয়েক সেকেন্ড থেকে কয়েক মিনিট পর্যন্ত।আমরা ৫০ বছর পূর্বের স্মৃতিকে স্মরণ করেও কান্না করি।প্রাণীরা ২ মিনিট অতীতের স্মৃতিকেও স্মরণ করতে পারেনা।তাই তাদের হয়তোবা আমাদের মতো মানসিক যন্ত্রণা নেই।তারা সবসময় বর্তমানের ভেতরেই ডুবে থাকে।আবার প্রাণীদের মস্তিষ্কে যদি শর্ট টার্ম মেমরি না থাকতো তবে তারা যা দেখতো মুহুর্তেই তা ভুলে যেতো আর এতে করে তাদের টিকে থাকার সম্ভাবনাটাই নষ্ট হয়ে যেতো।।মনে করুন, একটি হরিণকে বাঘ তাড়া করছে  আর সে বাঘকে দেখার সাথেসাথেই দোঁড়াতে শুরু করে;  আকষ্মিক সে  ভুলেই  গেলো সে আসলে কী করছে  এবং সে স্থির হয়ে দাড়িয়ে রইলো !এতে করে তাদের প্রজাতির কী টিকে থাকার আদৌ সম্ভাবনা থাকবে?একটি দৃশ্য আপনার রেটিনা থেকে অকুপিটাল লোবে প্রবেশ করার পর সেটির একটি শর্ট টার্ম মেমরি তৈরি হবে।এক সেকেন্ড থেকে দু-মিনিটের জন্যে হলেও সেন্সরি ইনফরমেশন আপনার ভেতর কাজ করবে। যদি ইনফরমেশন এক ন্যানোসেকেন্ডের জন্যেও আপনার শর্টটার্ম মেমরিতে প্রবেশ না করে আপনি যা দেখবেন,  তাই ভুলে যাবেন।এমনকি যদি আপনার শর্ট টার্ম মেমরি একেবারেই ডেমেজ হয়ে যায় তবে আমার ইমেজ আপনার মস্তিষ্কে প্রবেশ করবে ঠিকই কিন্তু ইনফরমেশনের ডিউরেশনের অভাবে আপনি আমাকে দেখতেই পাবেব না…!

মানুষ ছাড়া আর কোনো প্রাণীর মাঝেই লং টার্ম মেমরি নেই।প্রশ্ন হলো, কেনো?ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়ার ডঃ জেমস ম্যাকগুয়া বলেছেন,“The purpose of memory is to predict the future,”।আমাদের অতীতের স্মৃতির জন্মই হয়েছে ফিউচারকে সিমুলেট করার জন্যে।আমরা সূদূর অতীতের স্মৃতিকে স্মরণ করতে পারি ভবিষ্যতের চাহিদা এবং সুবিধাগুলি সিমুলেট করার জন্যেই।ইউনিভার্সিটি অব ওয়াশিংটনের বিজ্ঞানী ST লুইস বলেছেন,আমাদের মস্তিষ্কের যে এরিয়া অতীতকে স্মরণ করার জন্যে কাজ করে ঠিক একই এরিয়া ফিউচারকেও সিমুলেট করে।ডর্সোলেটারিয়াল প্রি-ফ্রন্টাল কর্টেক্স এবং হিপ্পোক্যাম্পাস দুটোই আলোকিত হয়ে উঠে যখন মানুষের মস্তিষ্ক ভবিষ্যকে সিমুলেট করে এবং অতীতকে স্মরণ করে।মজার ব্যাপার আধুনিক বিজ্ঞানীরা বলছে, একটা সেন্স থেকে আমাদের মস্তিষ্ক অতীতের ছবি এঁকে ভবিষ্যতকে স্মরণ করার চেষ্টা করে এটা সিমুলেট করার জন্যেই যে কোনোকিছু কিভাবে ভবিষ্যতে Evolve হবে।যারা এমনেসিয়ায় আক্রান্ত তারা ফিউচারকে ভিজুয়ালাইজ করতে পারেনা, এমনকি আগামীকাল তারা কী করবে তারা সেটাও কল্পনা করতে পারেনা, তাদের প্লান করার ক্ষমতা ডেমেজ হয়ে যায়।

ওয়াশিংটন ইউনিভার্সিটির ড. ক্যাথলিন ম্যাকডারমোট বলেন,“You might look at it as mental time travel—the ability to take thoughts about ourselves and project them either into the past or into the future”!(মেমরি সংরক্ষণ ও স্মরণ)

আমরা কী ভবিষ্যতকে স্মরণ করি; তথ্যসুত্র-

 

আরও পড়ুন

Leave A Comment...

হাইপারস্পেস
চিন্তা নয়, চিন্তার পদ্ধতি জানো...!